Ishan Kotha Latest Promo 14.01.2022.png

Latest Ishan Kotha Monthly Issue

Published on

14 January 2022 / ২৯ পৌষ ১৪২৮

Feature Theme : পৌষ পার্বণ

 Scroll down to read the text contents 

Next Ishan Kotha Weekly Updates

for the Serial Publications coming on

23 January 2022 / ০৯ মাঘ ১৪২৮

 Scroll down to read the text contents 

2nd Ishan Kotha Pujabarshiki

"ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮"

Published on 13th October 2021

 Scroll down to read the text contents 

Click on "Ishan Speaks"

to read our Latest Editorial

 ঈশানের কথা /Ishan Speaks 

14 January 2022 / ২৯ পৌষ ১৪২৮

Click on "Ishan Kotha YouTube Channel"

to Visit & Subscribe

 Ishan Kotha YouTube Channel 

Refer the Playlists

to watch the all the videos from

25 May 2020 - 15 January 2022

 ঈশানের কথার আর্কাইভ 

 Ishan Kotha Archive 

 Click on the names of the sections

to read all the text contents in our Archive

25 May 2020 - 13 October 2021

 রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি / 

 Social - Political - Economic Overview 

 সাহিত্য পত্র / Literatter 

 কৃষ্টি ও সংস্কৃতি / Culture & Heritage 

 বিজ্ঞান বিষয়ক / Science Forum 

 মাঠে ময়দানে / Sporting Arena 

 হাল্কাচ্ছলে / On a Lighter Note 

 যৌবনের আঙিনায় / Youth Affairs 

 রবিবারের ধারাবাহিক / Sunday Series 

 ফটো ফিচার / Photo Features 

 ঈশানের হাট / Promotional Stories 

Online Shopping & Advertising Platform

 ঈশানের হাট 

Click to Visit & See our Latest Offers

Click on "Team Ishan Kotha"

to know about our Team Members

 Team Ishan Kotha 


 ঈশানের দিনকাল 
 (Photo Features & Promotional Images) 

Ishan Kotha Latest Promo 14.01.2022
Ishan Kotha Latest Promo 14.01.2022

press to zoom
Ishan Kotha Latest Promo 14.01.2022
Ishan Kotha Latest Promo 14.01.2022

press to zoom
1/1

 
 রবিবারের ধারাবাহিক / Sunday Series 
 Next Update : 23 January 2022 / ০৯ মাঘ ১৪২৮ 

 

বিজ্ঞান বিষয়ক

তিতলির ব্রহ্মান্ড

বিজ্ঞান বিষয়ক সিলেটী গল্প  (পর্ব ১)

অতনু নাথ

১৩ অক্টোবর ২০২১

 

বরাক উপত্যকার স্বনামধন্য যুব বৈজ্ঞানিক, গবেষক, সিলেটী লেখক বর্তমানে গুয়াহাটি নিবাসী অতনু নাথ এর নতুন একটি অন্যরকম ধারাবাহিক গল্প "তিতলির ব্রহ্মাণ্ড"।

ধারাবাহিকটি সর্বভারতীয় সিলেটী ফোরাম এর ব্লগ এবং ঈশান কথায় একসাথে প্রকাশিত হচ্ছে।  

আজ পর্ব ১... 

কিছু কথা লেখকের জবানীতে...

"তিতলির ব্রহ্মাণ্ড" কইয়া একটা ধারাবাহিক শুরু করিয়ার, ইটা অইলো তিতলি ডাকনামর একটা ছুট মেয়ের ডায়েরি, তাইর বিভিন্ন অভিজ্ঞতা তাই ডায়েরির লগে বন্ধুর মতো গল্প করে। তাইর fascination এর বিরাট অংশ অইলো বিজ্ঞান কিন্তু তাইর লেখাত উঠিয়া আয় বড়রার বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা যেতার সবতা তাই না বুঝলেও ডায়েরিরে কয় রাত্রে একলা বইয়া। লালার দারোর নতুন বাজার গ্রামো ভাড়া থাকইন তারা, ভাই বইন আর তারার সায়েন্স টিচার মা... লগে থাকার সাহস দিলে শুরু করিদিমু। নিচে প্রথম entry দিলাম তাইর ডায়েরির, প্রথম অধ্যায় "আকাশ গঙ্গা" তাকি...

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি

সুরমা বরাকে উনবিংশের লুসাই অভিযান :
একটি পর্যালোচনা


পর্ব ৪ (শেষ পর্ব)
বিবেকানন্দ মোহন্ত 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

 

এই প্রবন্ধটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল দৈনিক সাময়িক প্রসঙ্গে ২০১১ সালে। এই গুরুত্বপূর্ণ প্রবন্ধটি চার পর্বে আবার ঈশান কথায় প্রকাশিত হচ্ছে। আজ চতুর্থ (শেষ) পর্ব...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি

রুপকুণ্ড সফর

ধারাবাহিক ভ্রমণ কথা (পর্ব ৭)

নীলাঞ্জন ভট্টাচার্য

১৩ অক্টোবর ২০২১

 

রুপকুণ্ড নিয়ে অনেক আগে পড়েছিলাম কোনও এক ম্যাগাজিনে। প্রায় 16000 ফিট উপরে হিমালয়ের  একটা ছোট্ট জলাশয় বা কুণ্ড। বছরের বেশীরভাগ সময় বরফে ঢাকা থাকে। কিন্তু এই বরফের পেছনে এক রহস্য লুকিয়ে আছে। কুণ্ডর চারিদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে হাজারো মানুষের হাড়গোড়, খুলি, বড়ো বড়ো জুতো, লাঠি ইত্যাদি। কেউ জানে না কোথা থেকে এলো এগুলো। কেউ বলে দেবীর অভিশাপ। দেবী কোনও কারণে রেগে গিয়ে কিছু পাপীকে অভিশাপ দিয়েছেন। রাগের কারণ নিয়েও জনমনে অনেক সংশয়। আবার যুক্তিবাদিরা বলেন পশ্চিম থেকে আসা কোনও এক যাযাবর দল যখন ক্লান্ত হয়ে রাতে কুণ্ডের পাশে রাত কাটাচ্ছিলো, তখনই এক বিকট শিলাবৃষ্টিতে মারা পড়ে সবাই। গল্পের কোনও শেষ নেই।  এও পড়েছিলাম কোনও এক সাংবাদিক দল কুণ্ডের পাশে রাত কাটাতে গিয়ে অদ্ভুত সব ভুতুড়ে ঘটনার সম্মুখীন হয়েছিলেন...

নীলাঞ্জন ভট্টাচার্যর ধারাবাহিক ভ্রমণ কথা "রুপকুণ্ড সফর"। আজ অন্তিম পর্ব...

সাহিত্য পত্র

"বাগান কুঠির রহস্য"

ধারাবাহিক রহস্য উপন্যাস (পর্ব ১১)

হিমু লস্কর 

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

এখন পর্যন্ত 
-------------------

বিক্রমপুর চাবাগানে পরপর তিনটে খুন হয়েছে। এরমধ্যে শ্রমিক সর্দার শম্ভু বাগদি নিখোঁজ। সবমিলিয়ে বাগানে ছড়িয়েছে প্রচণ্ড আতঙ্ক। এসবের মাঝখানে বাগান মালিক তারাচাঁদ রায়চৌধুরী এমন কিছু জানতে পেরেছেন যে, নিজেকে প্রচণ্ড অসুরক্ষিত মনে করছেন তিনি। সৌম্যর সাহায্যপ্রার্থী হয়েছেন তাঁরাচাদবাবু। তারাচাঁদ রায়চৌধুরীর কাছে তারা শুনলেন একটি ভয়ঙ্কর রহস্যের কথা এবং এরমধ্যেই পাওয়া গেল শ্রমিক সর্দার শম্ভু বাগদির ক্ষত বিক্ষত লাশ। শুরু হয়েছে জোরদার তদন্ত। লাশ যেখানে পাওয়া গেছে, তাঁর পাশেই পরিত্যক্ত বাগান কুঠি। সেখানে পৌছনোর পর সৌম্যর মনে হয় কেউ তাঁদের ওপর নজর রাখছে। হটাৎ সেখানে আবির্ভাব এক পাগলের। কে সে? এদিকে সৌম্য এবং মামন অধ্যাপক প্রশান্ত ভূষণের কাছ থেকে জানতে পারলো একটি অত্যন্ত চাঞ্চল্যকর ঐতিহাসিক সুত্র এবং সেখান থেকেই তাঁদের তদন্তের সঙ্গী অধ্যাপক ভূষণের মেয়ে তুতুল। বিক্রমপুর ফেরার পথে হটাৎ রাস্তায় তাঁদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তা সত্তেও সৌম্য এবং তাঁর সঙ্গীরা আবার হাজির বিক্রমপুর চা বাগানে। রাতে সৌম্য এবং তুতুল বাগান কুঠি তে পৌঁছে শুনল ৩ জনের কথা। চলছে গভীর ষড়যন্ত্র...   

পড়তে থাকুন ঈশান কথা'র ধারাবাহিক রহস্য উপন্যাস "বাগান কুঠির রহস্য"। লিখছেন বরাকের পরিচিত লেখক, সাংবাদিক হিমু লস্কর।

প্রকাশিত হল পর্ব ১১...

 
 মাসিক ঈশান কথা : পৌষ পার্বণ সংখ্যা 
 14 January 2022 / ২৯ পৌষ ১৪২৮ 

 

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি

মকর পাতানো বা মকর করা; আউনি বাউনি

শর্বরী পাল

ঘরে বাইরে যখন তীব্র পৌষ এর গন্ধ দাপিয়ে বেড়াচ্ছে তখন অতীতের কিছু আলাপন কানে বাজে। আমি ঠাম্মা-ঠাকুরদা কাউকেই পাই নি। দিদাকে পেয়েছিলাম, তবে বছর বারোর হতে হতে উনিও অক্কা পেলেন। যেখান থেকে আমার বড় হয়ে ওঠা, তাকে সেমিটাউন বললেই চলে। তবে আমার দুই জ্যাঠিমা গ্রামেরই লোক। দু'জনেরই বয়স ৭০/৮০ এর কাছাকাছি। উনাদের থেকে অনেক শুনেছি পৌষ, উত্তরায়ণ বা মকর সংক্রান্তির ব্যাপারে। বাংলা পৌষ মাসের শেষ দিন এই উৎসব পালন করা হয়। মকর সংক্রান্তির দিন থেকে সূর্যের গতি উত্তরায়ন গতিতে প্রারম্ভ হয় এজন্য এই মকর সংক্রান্তির পর্বকে উত্তরায়নীও বলা হয়ে থাকে...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি

পৌষ পার্বণ আইলো গো...

মেঘদূত সেন

ঘরর মানুষ কই গো পৌষ পার্বণ আইলো গো বানাও দেখি নব রঙ্গের পিঠা...' সাদা কালো টিভির পর্দায় শীত সন্ধ্যায় যখন এই গান বাজতো বুঝতাম 'পার্বণ' আর বেশি দূর নয়। শুরু হতো বন্ধুরা মিলে খড় জমানো। ফসল ঘরে তোলার পর মাঠে পড়ে থাকা পাতলা হলদেটে খড়ে আমাদের একচ্ছত্র অধিকার। কে কতো বেশি জমাতে পারি। সব আয়োজন পৌষ সংক্রান্তির ভোর ঘিরে। রাত পোহানোর আগেই পৌষের  হাড় হিম করা ঠান্ডা তোয়াক্কা না করে নদীতে স্নান সেরে নিতাম।জমানো খড় দিয়ে তৈরি মেড়ামড়ি ঘরে আগুন ধরিয়ে  সে কি আনন্দ-উচ্ছাস! আগুন পোহানো শেষে শুরু হতো 'পিঠা পর্ব'। নিজের ঘরের পিঠে সহ এঘর ওঘরে গিয়েও পিঠে খাওয়া। বকফুল, পাটিসাপটা, তিলের নাড়ু, মালপোয়া, ক্ষীরতোয়া সহ আরো কত কিছু। ঘড়ির কাঁটা দশটা ছোঁয়ার আগেই শিতলা দেবীর মন্দিরে জমায়েত হওয়া। সমস্ত দিন গ্রাম জুড়ে কীর্তন। 'আরে যার জির আনন্দে হরি বলরে ভাই...' 'আমার সারাজীবন ভরা হইলো না লুট ধরা...' 

সাহিত্য পত্র

গল্প - নিঝুম রাতের অতিথি...

তমোজিৎ ভট্টাচার্য

 

এই সংখ্যার দ্বিতীয় ছোটগল্প

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি

পুরনো পৃষ্ঠা থেকে :
বিশ্বায়নের সংস্কৃতি, সংস্কৃতির বিশ্বায়ন


অমিতাভ দেব চৌধুরী

 

এই প্রবন্ধটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল প্রতিশ্রোত লিটল ম্যাগাজিনে জ্যৈষ্ঠ ১৪১৩ বঙ্গাব্দ সংখ্যায়। ঈশান কথার নতুন প্রয়াস "পুরনো পৃষ্ঠা থেকে"-র অংশ হিসেবে এই লেখাটিকে ডিজিটাল মাধ্যমে প্রথমবারের মতো তুলে ধরা হল... 

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি

স্মৃতি বিস্মৃতির পৌষ পার্বন

কাত্যায়নী দত্ত চৌধুরী

 

নিত্য নৈমিত্তিক একঘেয়ে জীবনের গোলকধাঁধা থেকে বেরিয়ে পৌষ উৎসবের আস্বাদন লাভের স্মৃতি বড়োই মিষ্টি মধুর। প্রতি বছরই মন ছুটে যায় গ্রাম ছাড়া ওই রাঙা মাটির পথে, আমাদের গ্রামের ভিটেবাড়িতে। শহুরে সভ্যতায় কালে ক্রমে পরিবর্তিত হয়েছে বা হচ্ছে অনেক পূর্ব প্রচলিত রীতি-রেওয়াজ, অনুষ্ঠান পালনের ধরন-ধারণ, রান্না-খাওয়া, আরও অনেক, তবু পৌষের শেষ এলেই কচি লেবু পাতার মতো নরম রোদ্দুর আর ফিরোজা আকাশ আমার আলাভোলা মনকে নিয়ে যায় মেঠো পথের গন্তব্যে, আমি আবার শৈশব স্মৃতির পুনরাস্বাদনের সুযোগ পেয়ে যাই...

সাহিত্য পত্র

সনন্ত তাঁতির এক গুচ্ছ কবিতা

অসমীয়া থেকে অনুবাদ : সুজিৎ দাস

আধুনিক অসমিয়া কবিতার প্রবহমান ধারার একজন অন্যতম বিশিষ্ট কবি সনন্ত তাঁতি। তাঁর কবিতায় নিরন্তর যেমন উঠে এসেছে সমসাময়িক সময় সমাজ ও মানুষের যন্ত্রণা ব্যথা বেদনা ও দু:খের কথা ঠিক তেমনি উঠে এসেছে আমাদের চারপাশের অর্থনৈতিক অসাম্য, ভাষা ও ধর্মীয় বিভাজনের বিরুদ্ধে তাঁর দৃঢ় অবস্থানের কথা। সবচেয়ে লক্ষ্যণীয় দিক হচ্ছে তাঁর কবিতায় কোনো সান্ধ্য ভাষার প্রয়োগ, কোনো অস্পষ্ট উচ্চারণ নেই কোথাও। যা তিনি ব্যক্ত করতে চান সরাসরি সপ্রতিভতায় কবিতায় রূপ দেবার চেষ্টা করেন তিনি। কবি সনন্ত তাঁতির জন্ম বরাক উপত্যকার করিমগঞ্জের কালীনগর চা বাগানে। মূলত চা বাগানের উড়িয়া ভাষাভাষী লোক  হলেও মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত বাংলা মাধ্যমেই পড়াশোনা করেন তিনি। পরবর্তী পড়াশোনা ব্রক্ষ্মপুত্র উপত্যকায় এবং চাকরি জীবন প্রায় পুরোটাই কেটেছে গুয়াহাটি শহরে। সেই সূত্রে অসমিয়া ভাষা সাহিত্য সংস্কৃতির সঙ্গে তাঁর নিবিড় যোগাযোগ গড়ে উঠে এবং সেই ভাষাকে তিনি আপন মাতৃভাষার মতোই আত্মস্থ করেন আর আমৃত্যু সে ভাষাতেই সাহিত্য চর্চা করে প্রথমসারির অসমিয়া কবি হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন। তাঁর প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো 'উজ্জ্বল নক্ষত্রের সন্ধানত', 'ম ই মানুহর অমল উৎসব', 'নিজর বিরুদ্ধে শেষ প্রস্তাব', 'শব্দত অথবা শব্দহীনতাত' ও 'কাইলৈর দিনটো আমার হবো'। ২০১৮ ইংরেজিতে 'কাইলৈর দিনটো আমার হবো' কাব্যগ্রন্থের জন্য কবিকে সাহিত্য একাডেমি সম্মানে ভূষিত করা হয়। এছাড়াও ব্রক্ষ্মপুত্র উপত্যকা সাহিত্য পুরস্কার সহ বিভিন্ন সম্মান ও তিনি লাভ করেন। দীর্ঘ রোগভোগের পর গত ২৫ নভেম্বর তাঁর প্র য়াণ ঘটে। প্র য়াত কবি সনন্ত তাঁতির প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য হিসেবে ঈশান কথা'র পাঠকদের উদ্দেশ্যে কবির একগুচ্ছ কবিতার বাংলা অনুবাদ এ সঙখ্যায় নিবেদিত হলো...

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি

বরাকের ৩০ লক্ষ বাঙালিকে ব্রাত্য রেখে বরাক ব্রহ্মপুত্র সমন্বয় সম্ভব কি ?

পরিতোষ ভট্টাচার্য

 

শিলচরের সাম্প্রতিক হোর্ডিং কান্ড নিয়ে ব্রহ্মপুত্র উপত্যাকায় ব্যাপক বিতর্কের সূচনা হয়েছে। অসমিয়া বুদ্ধিজীবী থেকে শুরু করে বড় নেতা, পাতি নেতা অব্দি সবাই বিভিন্ন মন্তব্য করছেন,তর্ক বিতর্ক জমে ওঠেছে।  অনেকদিন পর ক্রিয়াটি হয়েছে বরাকে এবং প্রতিক্রিয়া হচ্ছে ব্রহ্মপুত্র উপত্যাকায়, যাকে ব্যাতিক্রমই বলা যায়। কারণ আমরা সাধারণত উল্টোটা দেখেই অভ্যস্ত। অথবা বলা যেতে পারে আমরা সর্বদাই প্রতিক্রিয়াশীল...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি

পৌষ পার্বণ

চন্দন ঘোষ

আমাদের বাঙালি জাতির সারাবছরই বারো মাসে তেরো পার্বণ লেগেই থাকে। তেমনি একটি বিশেষ ঐতিহ্যবাহী উৎসব পৌষ সংক্রান্তি বা মকর সংক্রান্তি। যাকে আমরা অনেকেই আবার তিল সংক্রান্তি বলেও ডেকে থাকি। বাংলা পৌষ মাসের শেষ দিনটিতে বিরাট উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে এই উৎসব আমরা উদযাপন করে থাকি। সাধারণত আমরা জানি যে, ঐদিন সূর্য ধনু রাশি থেকে মকর রাশিতে প্রবেশ করে দক্ষিণায়ন সমাপ্ত করে উত্তরায়ণের শুভ সূচনা ঘটে। সমস্ত শুভ কাজই সূর্যের উত্তরায়ণের দিন থেকে আরম্ভ হয়। ওই সময় গভীর অন্ধকারময় রজনী ধীরে ধীরে ক্রমশ ছোট হতে থাকে, সূর্যের তেজোদীপ্ত সোনালী আলোর ঝলমল দিন বড় হতে আরম্ভ করে। মনে হয় যেন শরীরের মাঝে থাকা সকল অলসতা নিমিষে কোথাও হারিয়ে যাওয়ার এক গোপন কুটির খুঁজে বেড়ায়...

সাহিত্য পত্র

গল্প - প্রিয়তমাসু

কল্পার্ণব গুপ্ত

 

এই সংখ্যার প্রথম ছোটগল্প

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি

কৃষক আন্দোলনের শিক্ষা-
গণতন্ত্র সুরক্ষার দায় এবার সংসদে নয়, সড়কে


আ.ফ.ম. ইকবাল

 

অতি সম্প্রতি সফলভাবে পরিসমাপ্ত হওয়া কৃষক আন্দোলন যে কর্পোরেট প্রেমী কেন্দ্রের এনডিএ সরকারের ঔদ্ধত্যকে চূর্ণ করেছে, একথা আজ সুস্পষ্টভাবে পরিস্ফুট। এই আন্দোলনের চাপে পড়ে অবশেষে নির্লজ্জভাবে কর্পোরেটাইজড কৃষি আইন বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে সরকার। হ্যাঁ, আকড়টি অবশ্য রয়ে গেছে, যা কৃষি বিল উত্থাপনের সময় ও ছিল। কিন্তু প্রধান যে বিষয়টি বিশ্ববাসী মনে রাখবে তা হলো  বিজেপির এ্যবসোল্যুট মেজরিটি থাকা সংসদে হাত তুলে জনগণের শক্তিকে অভিবাদন জানিয়ে, শীতকালীন অধিবেশনের প্রথম দিনই এই আইনগুলি বাতিল করা হয়েছে। অবশ্য সংসদে বিরোধীদের বিতর্কের সুযোগ না দিয়ে অধিকতর চুনকালি লেপন থেকে রক্ষা পাওয়া গেছে যদিও, তাতে কিন্তু কৃষকদের কিচ্ছুটি যায় আসে না। তারা বিজয়ীর বেশে রাস্তাঘাটে, গ্রামে গ্রামে এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে বিজয় বার্তা পোঁছে দিয়েছে। সংসদে শুধু স্ট্যাম্প দেওয়ার কথা ছিল, যা ইতিমধ্যে হয়ে গেছে। কৃষকদের এই বিজয় সামগ্রিকভাবে এমন এক বিজয়ের ইঙ্গিত দেয়, যা গণতন্ত্রের জন্য শুভ সঙ্কেত স্বরূপ। যারা জনগণ ও জনগণের শক্তিকে সম্মান করতে জানে না, তাদের জন্য এটি এক বিরাট সবক। এর মধ্যে অবশ্যই তারাও অন্তর্ভুক্ত যারা এই পরাজিত কৃষি আইনের মাধ্যমে একচেটিয়া পুঁজিপতিদের মধ্যে গ্রামীণ ও শহুরে দরিদ্র জনগণের ত্রাণকর্তার চিত্র দেখতে এবং অনুসন্ধান করে চলেছেন...

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি ১

উৎসবের ঋতুতে বাজে বিসর্জনের বাজনা


অধ্যাপক তপোধীর ভট্টাচার্য

 

শারদীয় উৎসব পঞ্জিকার বিধি অনুযায়ী আবারও শুরু হতে চলেছে। কোভিড অতিমারী আমাদের মনোযোগ গতবছর এমন ভাবে অধিকার করেছিল যে বাঙালির তথাকথিত জাতীয় উৎসব যে শাসকের ঔদ্ধত্য আধিপত্যবাদী ফতোয়ার ছায়ায় আবিল হয়ে গেছে তা আত্মবিস্মৃত জনপদের অধিবাসীরা আদৌ লক্ষ করেননি। এবার রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত সংবাদ-মাধ্যমগুলি ‘তৃতীয় ঢেউ’ নিয়ে আতঙ্ক ছড়ানোর কাজ শাসকের দীর্ঘমেয়াদি স্বার্থপূরণের জন্যে শুরু করলেও শেষপর্যন্ত খুব একটা বাড়াবাড়ি করেনি। এরই মধ্যে এল বাঙালির প্রিয় মহালয়া। ঘুম-জড়ানো চোখ নিয়েও আমরা অনেকে নিশ্চয় উৎকর্ণ হয়ে উঠেছিলাম ‘বাজল তোমার আলোর বেণু, জাগল ভুবন’ শোনার জন্যে। কিন্তু সত্যিই কি প্রশ্নহীন ভাবে অভ্যাসের বন্দীশালায় রুদ্ধ থেকে জেগে উঠেছি আমরা? ঘুমের ঘোর কি ভেঙেছে?

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি ৪

ভাবনায় অনলাইন শিক্ষা


ভাস্করজ্যোতি দাস

 

সভ্যতার এগিয়ে যাওয়ার ইতিহাসে রয়েছে বিভিন্ন ক্ষত চিহ্ন। জ্বালামুখীর লাভা থেকে শুরু করে করোনা মহামারীর থাবা, সবকিছুকেই মানিয়ে নিয়েছে এ পৃথিবী। মানুষ প্রয়োজনে পাল্টে ফেলেছ নিজেকে, নিজের জীবন শৈলীকে। মানুষের এই 'চলো পাল্টাই' মানসিকতাই মানুষকে এ গ্রহ থেকে নিশ্চিহ্ন হতে দেয়নি।

অবশ্য শিক্ষা ক্ষেত্রের দিকে তাকালে আমরা ততটা পাল্টানো রূপ দেখতে পাই না। গুরু গৃহ থেকে আধুনিক স্কুলের পরিভাষা ও পরিকাঠামো মোটামুটি প্রায় একই। করোনার থাবায় বা ঝটকায় শিক্ষা ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন দেখা দিয়েছে। এই পরিবর্তন কাঙ্ক্ষিত ছিলো কি না সে অবশ্য বিতর্কিত বিষয়।  তবে সব নতুন ধারণাই যে সব দিক দিয়ে ভালো হবে তা তো নয়...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ২

॥          তৎসম হ্যাংওভার           ॥
বানান সমতা বিধানের গতিরোধক

শান্তনু গঙ্গারিডি

বাংলা বানান প্রমিতকরণ ও সমতাবিধানের কাজ শুরু হয়েছিল ১৯৩৬-এ কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে। কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঠিক করা বানানই আমরা একটু আধটু এদিকসেদিক করে এখনও ব্যবহার করছি। ভাষাতত্ত্ববিদরা বলে থাকেন, বানান এসেছে ব্যুৎপত্তিগত যুক্তিতে, বানান কোন খোকার হাতের মোয়া নয়। ১৫৮৬ খ্রিস্টাব্দে উইলিয়াম বুলোকার লিখিত প্যামফ্লেট ফোর গ্রামার বইটিকে প্রথম ইংরেজি ব্যাকরণ বই হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। বুলোকার সাহেব ঘোষণা দিয়েছিলেন, ইংলিশ গ্রামারকে ল্যাটিন গ্রামারের নীতি নিয়মে চলতে হবে। অর্থাৎ, প্যামফ্লেট ফোর গ্রামার-টা আসলে লাতিন ভাষায় লিখিত লাতিন গ্রামারের বিধি নিষেধ ইংরেজি ভাষায় চাপিয়ে দেবার প্রচেষ্টা ছাড়া বিশেষ কিছু ছিল না...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ৫

সলিল-হেমন্ত

সুমিত গঙ্গোপাধ্যায়

 

সুমিত গঙ্গোপাধ্যায় ক্রিকেট ইতিহাস আর পরিসংখ্যানবিদ। কিন্তু তার সাথে বাংলা স্বর্ণ যুগের আধুনিক গান নিয়েও গবেষণা করছেন। সলিল চৌধুরী এবং হেমন্ত মুখোপাধ্যায় এর জীবনের একসাথে করা নানা কাজ নিয়েই এই লেখা...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ৮

অরণ্যের দিনরাত্রি :
সংবেদনহীন চরিত্রের সমীক্ষা 

সন্দীপা দাস শীল

 

সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষে ওনাকে শ্রদ্ধা জানিয়ে অরণ্যের দিনরাত্রি ছবিটি নিয়ে কিছু কথা লিখেছেন লেখিকা...

বিজ্ঞান বিষয়ক ৩

শরৎকালীন প্রকৃতি ও পরিবেশ বন্দনা


ডঃ পার্থঙ্কর চৌধুরী

 

‘নবপত্রিকা’! সেদিন একটা বাচ্চা ছেলেকে জিজ্ঞেস করায় সে বলছিল, এটা আবার কোন পত্রিকা? আনন্দবাজার পত্রিকা জানি, যুগশঙ্খ-সাময়িক-গতি-প্রান্তজ্যোতি-বার্তালিপি এমনকি দৈনিক নববার্তা-র নামও জানি। এটার নাম তো কোথাও শুনিনি। তবে কি এটা নতুন কোন খবরের কাগজ? কোথা থেকে বেরুচ্ছে? কারা বের করলো? ইত্যাদি… ইত্যাদি… যাক গে…! এই প্রজন্মের কাছে ‘দশভুজা’, ‘মহিষাসুর-মর্দিনী’… এই শব্দগুলোর চাইতে দুর্গাপূজার এই ক’দিন শুভেচ্ছা বিনিময়ের ভাষা, ‘Happy Pujo…’ 

দুর্গাপূজার প্রচলনের একেবারে গোঁড়ার দিকে যে কৃষি নির্ভর অর্থাৎ agrarian একটা দৃষ্টিকোণ ছিল, সে দিকটা আমাদের ক’জনেরই বা জানা? গাছ-লতা-পাতা ইত্যাদির সংরক্ষনের একটা যে গভীর দার্শনিক তত্ত্ব এর পিছনে নিহিত রয়েছে এর কোন কিছুই আজকের দিনের বিগ বাজেটের এবং সাড়ম্বরপূর্ণ শারদীয়া পূজার বাহ্যিক জাঁক-জমক এবং বহিরাম্বরে ধরা পড়ে না... 

হাল্কাচ্ছলে ২

দোলায় গমন... 
তৃতীয় ঢেউ আসবে কি?? 

মধুমিতা ভট্টাচার্য

 

মা দুর্গার এবার দোলায় গমন। তারপর ?? পড়ে দেখুন এই মজার রম্যরচনাটি...

ফোটোফিচার ১

Bijapur ! Land of Adil Shahs

Jyoti Prakash Bhattacharjee

 

I recall a quiz program during college where I was asked "Name four Piece of Monuments which best represents Islamic Architecture of India". Besides, Taj, Qutub ... I named Charminar and GolGombuz ..... It was a correct answer)
Since then Bijapur was in my mind and finally, it happened ... a visit to the land of Adil Shahs who had the might and courage to ward off Mughal invasions for a long time in central India... and left behind some wonderful piece of monuments ...

নাটক ২

হ্যালো পৃথিবী

চিত্রভানু ভৌমিক

শিলচরের বিশিষ্ট নাট্য পরিচালক চিত্রভানু ভৌমিকের নতুন অপরিবেশিত নাটক "হ্যালো পৃথিবী"...

গল্প ৩

ডিহবাবার দয়া

আদিমা মজুমদার

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

তৃতীয় ছোট গল্প

"ডিহবাবার দয়া"

গল্প ৬

বিপিনের বাবা

কল্পার্ণব গুপ্ত

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

ষষ্ঠ ছোট গল্প

"বিপিনের বাবা"

গল্প ৯

অচিনপুর

শান্তশ্রী সোম

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

নবম ছোট গল্প

"অচিনপুর"

কবিতা ৩

সংকেত

পীযূষ রাউত

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য পীযূষ রাউতের একটি কবিতা

"সংকেত"

কবিতা ৬

জীবাণু প্রতিমা

নিরূপম পাল

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য নিরূপম পালের একটি কবিতা

"জীবাণু প্রতিমা"

কবিতা ৯

প্রার্থনা

মৃন্ময় রায়

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য মৃন্ময় রায়ের একটি কবিতা

"প্রার্থনা"

কবিতা ১২

ঋণ

মৈত্রায়ণ চৌধুরী

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য মৈত্রায়ণ চৌধুরীর একটি কবিতা

"ঋণ"

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি ২

মাতৃসাধনায় উন্মীলিত হোক আত্মসচেতনাবোধ


দীপক সেনগুপ্ত

 

অতিমারির আবহে শারদীয় দুর্গা পূজার আয়োজনে কতটা সফল উৎসব হয়ে উঠবে জানিনা, আর কতটা সফল হওয়া উচিত এই নিয়েও প্রশ্ন আছে কেননা চুড়ান্ত সাফল্য যদি অতিমারিকে তৃতীয় পর্যায়ে পৌঁছে দেয় এই আশঙ্কা থেকে সমাজ ও রাষ্ট্রের সচেতন থাকা উচিত। ধর্মকে কেন্দ্র করে আবেগের কাছে বিজ্ঞান পরাভূত। আবেগের কাছে যুক্তির পরাজয় অবশ্যই একটি সংকট এবং সভ্যতার নানাবিধ সংকটের মধ্যে অন্যতম প্রধান সংকট। ব্যক্তি জীবনের বোধ এবং বিশ্বাসের সীমা অতিক্রম করে ধর্ম সমাজকে প্রভাবিত করে রাষ্ট্রের হাতে ক্ষমতার দণ্ড তুলে দেয়। আবহমান কাল থেকে এই দণ্ডে বলীয়ান রাষ্ট্র সমাজ ও ব্যক্তিকে নিয়ন্ত্রণ করে। নিয়ন্ত্রণের নামে ক্ষমতার আস্ফালনে সমাজ ও ব্যক্তির সঙ্গে রাষ্ট্রের বিচ্ছিন্নতার ক্রম প্রসারণ সমাজের অবক্ষয় এবং ব্যক্তির অসহায়তাকেই আবাহন করে। শক্তিকে আরাধনা করতে যূপকাষ্ঠে অতি নিরীহ প্রাণীকে যেমন বলি দেওয়া হয় তেমনি রাষ্ট্রের শক্তির কাছে নিরীহ গোবেচারা নাগরিকদের ব্যক্তি স্বাধীনতা বলি প্রদত্ত। আন্তর্জাতিক জাতীয় এবং রাজ্যের সাম্প্রতিক ঘটনাবলীতে এই কথা প্রমাণিত...

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি ৫

ই-কমার্সের হাত ধরে কোন পথে আমরা ?

 

রাহুল রায়

একটি বড় গ্রামের বাজার। নিত্য প্রয়োজনের জিনিষ থেকে বিলাসবহুল সামগ্রী কম বেশি সবই এখানে পাওয়া যায়। গ্রামের মানুষ তাঁদের সবধরণের কেনাকাটা সেই বাজার থেকেই করে। গ্রামের বাজারে যে সব কিছু পাওয়া যায় তা না, দোকানীরা পার্শ্ববর্তী শহর থেকে এনে সেই ঘাটতি পুষিয়ে নেয়। গ্রামের প্রচলিত নিয়ম মতে বাইরের দোকানীরা গ্রামে এসে দোকান খুলতে পারতো না কারণ এর ফলে গ্রামের স্থানীয় দোকানীদের স্বার্থক্ষুণ্ণ হতো। বাইরের দোকানীরা দেখল গ্রামে প্রচুর মানুষের বাস। অর্থনৈতিক ভাবে তাঁদের অবস্থা খুব ভালো না হলেও খারাপ না। সেই গ্রামের বাজার যদি দখল নেওয়া যায় তাহলে তাঁদের ব্যবসার প্রভূত লাভ হবে। তারা গ্রামের বর্তমান নীতিনির্ধায়কদের নিজেদের পাশে টানতে শুরু করল। সাম-দাম-দণ্ড-ভেদ কোনো নীতিই বাদ গেল না। ধীরে ধীরে গ্রামের বাজারের অবরুদ্ধ দরজা বহিরাগতদের জন্য খুলে যেতে লাগল। মুক্ত অর্থনীতি, ভোক্তার ক্ষমতায়নের কথা ক্ষণে ক্ষণে প্রচার করা হল...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ৩

যে সমাজটাকে দেখেছি শিলঙে

অধ্যাপক তন্ময় ভট্টাচার্য

 

শিলঙের পুরনো দিনের কিছু স্মৃতিচারণা করেছেন বিশিষ্ট অধ্যাপক ও প্রাবন্ধিক তন্ময় ভট্টাচার্য...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ৬

।। শারদ প্রাতে রাত পোহালো ।।

ডঃ স্বরূপা ভট্টাচার্য

 

ঈশান কথা'র শারদ পত্রের জন্য লেখা দিতে অনুরুদ্ধ হয়েছি। লেখাতে আমার বরাবরই ভয়। মুশকিল হচ্ছে এই করোনাকালে মালাবারেও পালাবার পথ নেই। অতঃপর নিতান্ত দীন-হীন চিত্তে চারপাশে চোখ বুলাতে বুলাতে মনে যেন হঠাৎই একটা মন খারাপের মেঘ চেপে বসল। এই বেয়াড়া রোগটা মাঝে মাঝেই আমায় ভোগায়। কলম হাতে মনটা চলে গেল অনেকদূর। প্রায় চল্লিশ বিয়াল্লিশ বছর আগে।  যেখানে এমনি এক শরতের ভোরে ছোট্ট একটি মেয়ে শিউলি তলায় শিউলি কুড়োচ্ছে। দোসর তার পাঁচ বছরের বড় জ্যাঠতুতো দাদা। শিউলিতলা টা ফুলের চাদরে মোড়া। ঘাস মাটি প্রায় দেখাই যায়না। বড় বড় দুধ তিনটে ডালা শুধু শিউলি ফুলে ভর্তি হয়ে গেছে। এছাড়াও রয়েছে থোকা থোকা গোলাপি স্থল পদ্ম আর লাল জবা। চল্লিশ বছর আগের সময় সিনেমার দৃশ্যের মত চোখের সামনে পরপর ফুটে উঠছে। চারদিক সরগরম বাড়িতে হাঁকডাক চলছে...

বিজ্ঞান বিষয়ক ১

উত্তরপূর্ব ভারতের আদিবাসীদের
জিনগত গঠন ও তাঁদের উৎস সন্ধানে

রাজ প্রদীপ চক্রবর্তী

 

লেখাটি লেখকের ব্যক্তিগত ব্লগে উনি আগে প্রকাশ করেছেন। এই বিষয়ে আমরা পূর্বে লেখকের সাক্ষাৎকার ও নিয়েছিলাম আমাদের ইউটিউব চ্যানেলের জন্য। একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে এই লেখাটি পুনঃপ্রকাশ করা হল...

বিজ্ঞান বিষয়ক ৪

Mother Nature and Father Time: An Eternal Story

 

Dr. Chandrani (Pinki) Purkayastha

 

From origin of human race, curiosity led to all the discoveries. Time and Nature both are integral part of human life and its evolution. People throughout the centuries thought philosophically about that which gave birth to the story of mother-nature and father-time. Though not proven, it is often found that people pair Father-Time with Mother-Nature as a married couple because of their parental nature...

হাল্কাচ্ছলে ৩

মর্ত্যাসুর দের সামনে মহিষাসুর ফেল​

কৃশানু ভট্টাচার্য

 

কে বেশী শক্তিশালী, মহিষাসুর না মর্ত্যের চারিদিকে ছড়িয়ে থাকা নানা জাতির অসুর ??

ফোটোফিচার ২

Kabiguru & My Creations...

Chandrima Syam

 

Few of my Paintings inspired from various creative works of Kabiguru Rabindranath Tagore & His Shantiniketan...

গল্প ১

বাৎসরিক


তৃণময় সেন

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

প্রথম ছোট গল্প

"বাৎসরিক"

গল্প ৪

বন্ধু

শর্মিলী দেব কানুনগো

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

চতুর্থ ছোট গল্প

"বন্ধু"

গল্প ৭

গণু

অভিজিৎ মিত্র

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

সপ্তম ছোট গল্প

"গণু"

কবিতা ১

দু’টি কবিতা

জয়িতা দাস

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য জয়িতা দাসের দুটি কবিতা

"স্মৃতি বিস্মৃতির চেয়ে কিছু বেশি"

এবং

"সবচেয়ে উঁচু তারাকে আমি বলি"

কবিতা ৪

অমর ঊনিশ

জয়রাজ পাল

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য জয়রাজ পালের একটি কবিতা

"অমর উনিশ"

কবিতা ৭

দুটি কবিতা

প্রেমাঙশু পালচৌধুরী

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য প্রেমাঙশু পালচৌধুরীর দুটি কবিতা

"ছায়ানট"

"দেবদাসী"

কবিতা ১০

দুটি কবিতা

রবি শঙ্কর ভট্টাচার্য্য

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য রবি শঙ্কর ভট্টাচার্য্যের দুটি কবিতা

"শিশির বিন্দু"

"সুদীন"

রাজ-সমাজ-অর্থ + নীতি ৩

গণতন্ত্র, গণতান্ত্রিক দায়বদ্ধতা এবং
রাষ্ট্রের ভুমিকা


আ.ফ.ম. ইকবাল

 

গণতন্ত্র প্রসঙ্গে নোবেল বিজয়ী অমর্ত্য সেনের তিনটি কথা অত্যন্ত্য গুরুত্বপূর্ণ। তিনি বলেছেন-   

প্রথমত, গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে হলে ব্যক্তিস্বাধীনতাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। দ্বিতীয়ত, গণতন্ত্র কতটা উৎকর্ষ লাভ করলো, সেই বিতের্ক না গিয়েও এর বিকাশের প্রতিই নজর দেওয়া জরুরি। তৃতীয়ত, গণতন্ত্রে আলোচনা ছাড়া কিছু সম্ভব নয়। তা কি আদৌ হচ্ছে ??

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ১

বাবার পূজা গানে গানে

আগমনি ও বিজয়া গান : বাঙালির শ্রেষ্ঠ সম্পদের

অন্যতম ভান্ডারী আমাদের বাবা

 

সঞ্জীব দেবলস্কর

 

ইদানীং কলকাতাভিত্তিক কয়েকটি টেলিভিশন চ্যানেলের দৌলতে আমরা কিছু আগমনি গান শুনতে পাই যে গানগুলো আজ থেকে সত্তর আশি বৎসর আগেই বাবা গাইতেন। বিভিন্ন সংগীত সংকলন গ্রন্থ, গবেষণা নিবন্ধতে মাঝে মাঝে এসব গানের পদ মুদ্রিতও দেখা যায় সামান্য পাঠান্তর নিয়ে। মূলত বৈঠকী চালের এ গানগুলো বেহাগ, ভীমপলশ্রী, বিভাস, ভৈরবী রাগ এবং সে সঙ্গে কীর্তনাঙ্গে বাঁধা। কথা, সুর, তালের নিবিড় সমন্বয়ে এ গানগুলো যদিও এক একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ নির্মাণ, তবুও বাবা গানগুলোকে ক্রমান্বয়ে সাজিয়ে নিয়েছিলেন। এতে যখন কিছু কথা, ভাষ্য সংযোগ করে পরিবেশন করতেন তখন এর মধ্যে একটি কাহিনির আদলও গড়ে উঠত...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ৪

কোম্পানি আমলে বঙ্গে Doorgah পূজা

দীপঙ্কর ঘোষ

 

দূর্গা পূজার সাথে জড়িয়ে আছে জাতি গঠন বা সংহতি চিন্তা।  বৈদিক সুক্তে  দেবী নিজ মুখে বলেছেন "অহং রাষ্ট্রী" অর্থাৎ আমি রাষ্ট্রস্বরূপিণী, এই জগতের অধীশ্বরী একমাত্র আমিই। দেবীমুর্তির মধ্যে সেই ঐক্য চেতনা ও জাতিগঠনের ইঙ্গিত আমরা দেখতে পাই। দুর্গা প্রতিমা মানে বৃহত্তর হিন্দু জাতি বা হিন্দুসমাজ। তাই এই পূজায় ব্রাহ্মণ, ক্ষত্রিয়, বৈশ্য, শূদ্র, ক্ষৌরকার, কুম্ভকার, ধনী-গরীব, জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব সম্প্রদায়ের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। একটি রাষ্ট্রকে পরিচালনা করতে জ্ঞানশক্তি, ক্ষাত্রশক্তি, ধনশক্তি ও জনশক্তি এই চারটি শক্তির প্রয়োজন। রাষ্ট্রপরিচালনায় এই চার শক্তির সমন্বয়ের প্রতীক হচ্ছে দুর্গাপূজা আর বঙ্গদেশের দুর্গাপূজাতো শুধু রাষ্ট্রশক্তির প্রতীকই নয় এর সঙ্গে জুড়ে আছে তার অর্থনীতি, সমাজভাবনা, লোকাচার, শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি সবকিছুই। এই নির্ভেজাল সত্যটি ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আমলে সাহেবরা খুব ভালো করে বুঝতে পেরেছিলেন। হিন্দুদের মন জয় করে সুচারুভাবে শাসনকার্য পরিচালনা করতে তাই তাঁরা দুর্গাপূজাকে নানাভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করতেন...

কৃষ্টি ও সংস্কৃতি ৭

শিলচরের দূর্গোৎসবে নাটক : 
অতীত, বর্তমান এবং ...

 

সুবীর ভট্টাচার্য

 

শিলচর শহর নাটকের শহর। অবশ্য অনেকেই হয়ত 'নাটকের শহর' শব্দটিতে আপত্তি জানাবেন। আপত্তি থাকতেই পারে। তবুও আমি 'নাটকের শহর' শব্দটি ব্যবহারে অটল থাকবো। নাটকই এই উপত্যকার মানুষের সাংস্কৃতিক আদান-প্রদানের একমাত্র মাধ্যম, এবং আজ থেকে ১৫০ বছর আগেও এখানকার বাঙালিদের সাংস্কৃতিক জীবনে নাটকের যথেষ্ট গুরুত্ব ছিল। এই নাটককেন্দ্রিক সংস্কৃতির ফলে যে কোন নতুন ভাবনা চিন্তা বৃহত্তর মানুষের কাছে উপস্থাপনার জন্য নাটক অবলম্বন করা ছাড়া আর কোন উপায় ছিল না। ছিন্নমূল বাঙালির সাংস্কৃতিক কাজকর্মের ধারা অনুযায়ী এইসব নাটক পূজা-পার্বনে মঞ্চায়ন হতো এবং এইসব মঞ্চায়নের মাধ্যমে এখানকার বাঙালির নাট্যজগতে প্রবেশের হাতে-খড়িও হতো... 

বিজ্ঞান বিষয়ক ২

আমরা কি মহাবিশ্বে একা ?

গোবিন্দ ভট্টাচার্য

(ভাষান্তর : জয়দীপ ভট্টাচার্য)

 

আমরা কি এই মহাবিশ্বে একমেবোদ্বিতীয়ম ? কেউ কি মহাশূন্য থেকে আমাদের পর্যবেক্ষন করছে ? পৃথিবীর বাইরে আর কোথাও কি প্রাণের অস্তিত্ব আছে ? এই প্রশ্নগুলোর উত্তর পেতে গেলে প্রথমে আমাদের বুঝে নিতে হবে তিনটি রহস্যকে - প্রাণের সংজ্ঞা কি ?  প্রাণের উদ্ভবের জন্য পূর্বশর্ত কি কি ? এবং কিভাবে পৃথিবীতে প্রাণ বিকশিত ও বিবর্তিত হল...

হাল্কাচ্ছলে ১

অম্ন মধুর : টেলিফোন ও টর্চ লাইট

কল্যাণ দেশমুখ্য

 

কল্যাণ দেশমুখ্যর রম্যরচনা ধারাবাহিক অম্ল মধুরের এবারের নিবেদন "টেলিফোন ও টর্চ লাইট"

বই পাঠ প্রতিক্রিয়া

মাটির পৃথিবীঃ বিশ্বপ্রেমের সুখপ্লাবনের বন্ধন


পঙ্কজ কান্তি মালাকার

 

বরাকের শনবিলের ছেলে, বর্তমানে লোহিত পারে গুয়াহাটি নিবাসী কবি বিদ্যুৎ চক্রবর্তী মহাশয়ের দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ (এবং সার্বিক চতুর্থ গ্রন্থ) 'মাটির পৃথিবী'। কাব্যগ্রন্থটি পাঠের প্রতিক্রিয়া লিখেছেন হারাঙ্গাজাও এর কলেজ অধ্যাপক পঙ্কজ কান্তি মালাকার... 

নাটক ১

সূর্য ওঠার পালা

হরেন্দ্রনাথ বড়ঠাকুর

(অনুবাদ : সুশান্ত কর)

হরেন্দ্রনাথ বরঠাকুরের জন্ম ১৯৪১। মাস চারেক আগে তিনি জন্মের আশি বছর পার করেছেন।

বর্তমান নাটকটি তাঁর ‘বেলি অলোআ সাধু’ নাটকের অনুবাদ। মূলকে অক্ষত রেখে করা কোনও অনুবাদই ভালো অনুবাদ নয়। তবু বড়দের জন্যে লেখা গল্প, উপন্যাস,প্রবন্ধ অব্দি মূলের অনেকটা ধারে কাছে রেখে দেওয়া যায়। প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে কবিতা, নাটক ইত্যাদি। বিশেষ করে যদি সেই সব ছোটোদের জন্যে হয়।আর সমস্যা হয় রূপকথা লোককথার অনুবাদে।লোকের মুখে মুখে অনুবাদে রূপকথা, লোককথা, প্রবাদের প্রবচনের অনুবাদ হতে হতে বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়ার ইতিহাস বহু প্রাচীন। ফলে এগুলো আবার অনুবাদ করবার কোনও মানেই হয় না। সেরকম গানে হবহু অনুবাদে তাল ছন্দ মেলানো কঠিন। বিশেষ করে কেশম মোহন্তের লেখা ‘নাম’ আর একেবারে শেষে ‘বরগীত’-এর অনুবাদ অসম্ভব ছিল। তাই আমরা কোথাও হেমাঙ্গ বিশ্বাস, ও রবীন্দ্রনাথের গান সোজা ব্যবহার করলাম। তেমনি শেষে বরগীতের বদলে রবীন্দ্র কবিতা। মাঝে জয়ন্ত হাজরিকার বিখ্যাত গান ‘আগলতি কলাপাত লৰে কি চৰে’-র বাংলা অনুবাদ বেখাপ্পা হত বলে আমরা উপেন্দ্র কিশোরের গল্পের দুই পঙক্তি ছড়াটিই ব্যবহার করে কাজ চালালাম। যেখানে মনে হয়েছে নাট্যকার স্বাধীন গান রচনা করেছেন, আমরাও স্বাধীন ভাবানুবাদ করেছি। একটিতে অমর পালের বিখ্যাত গানের সুর নির্দেশ ছাড়া বাকিটা পরিচালকের উপরে ছেড়ে দিয়েছি...

গল্প ২

অন্নপূর্ণা

মহাশ্বেতা দেব

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

দ্বিতীয় ছোট গল্প

"অন্নপূর্ণা"

গল্প ৫

তালাক

মাণিক চক্রবর্তী

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

পঞ্চম ছোট গল্প

"তালাক"

গল্প ৮

ক্ষমা নেই

চিরশ্রী দেবনাথ

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

অষ্টম ছোট গল্প

"ক্ষমা নেই"

কবিতা ২

উমার আগমন

চন্দন ঘোষ

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য চন্দন ঘোষের একটি কবিতা

"উমার আগমন"

কবিতা ৫

বালিকার মুখ

নির্মল হালদার

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য নির্মল হালদারের একটি কবিতা

"বালিকার মুখ"

কবিতা ৮

পাঁচটি বছর পর

সুজিৎ দাস

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য সুজিৎ দাসের একটি কবিতা

"পাঁচটি বছর পর"

কবিতা ১১

অনির্বাণ

হিমু লস্কর

 

ঈশান কথা পূজাবার্ষিকী ১৪২৮-এর

জন্য হিমু লস্করের একটি কবিতা

"অনির্বাণ"