মাঠে ময়দানে

চলে গেলেন শিলচর তথা উপত্যকার প্রাক্তন রঞ্জি ক্রিকেটার সুবীর দত্তরায় 
ইকবাল বাহার লস্কর
১০ জুন ২০২১

কিছুদিন আগে না ফেরার দেশে চলে গেলেন আশি ও নব্বই দশকের শিলচর জেলা দলের নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার,
কোচ ও আসাম রঞ্জি দলের প্রাক্তন খেলোয়াড় শুভভ্রত দত্তরায় ওরফে সুবীর দত্তরায়।
তাঁর প্রয়াণেই তাঁকে স্মরণ করে কিছু কথা লিখেছেন ইকবাল বাহার লস্কর ...

Subir%20Dutta%20Roy_edited.jpg

না ফেরার দেশে চলে গেলেন  আশি ও নব্বই দশকের শিলচর জেলা দলের নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার, কোচ ও আসাম রঞ্জি দলের প্রাক্তন খেলোয়াড় শুভভ্রত দত্তরায় ওরফে সুবীর দত্তরায়। তার মৃত্যুতে শোকাহত আসাম ক্রিকেট সংস্থা (এসিএ)। সংস্থার সভাপতি রমেন দত্ত এবং সচিব দেবোজিৎ শইকিয়া এক বিবৃতিতে শুভভ্রতের মৃত্যুতে গভীরভাবে ‌‌শোক ব্যক্ত করেছেন। প্রয়াত শুভভ্রত, সুবীর দত্তরায় নামেই অধিক পরিচিত ছিলেন। এসিএ প্রধান দ্বয়ের বার্তায় শোকাহত পরিবারের প্রতিও সমবেদনা ব্যক্ত করা হয়েছে। তাঁর এই প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ করেছে শিলচর জেলা ক্রীড়া সংস্থাও। সংস্থার সভাপতি বাবুল হোড় ও সাধারণ সচিব বিজেন্দ্র প্রসাদ সিং এক শোক বার্তায় বিদেহি আত্মার চিরশান্তি কামনা করেন এবং একই সাথে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। প্রয়াতের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে গত ২৯শে মে, শনিবার শিলচর ডিএসএ-র পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়।

 

কাছাড় জেলা ক্রীড়া সংস্থার আজীবন সদস্য সুবীর দত্তরায়  সিনিওর ক্রিকেট দলের কোচ ছাড়াও আসাম ক্রিকেট সংস্থার জুনিয়র ক্রিকেট দল নির্বাচন কমিটির সদস্যও ছিলেন। ক্রিকেটে উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান হিসাবে মাঠে দখল ছিল তাঁর। ১৯৮৭ সালে ত্রিপুরার সঙ্গে বিজয়ী আসাম রঞ্জি দলের খেলোয়াড় ছিলেন। ১৯৭২ সাল থেকে ক্লাব ক্রিকেট থেকে প্রয়াতের উত্থান ঘটে। রাজ্যস্তরের এই ক্রিকেটার অসংখ্য আন্তঃ জেলা ক্রিকেট, সিনিওর ক্রিকেট প্রতিযোগিতা নূর উদ্দিন ট্রফি ইত্যাদি ছাড়াও কোচবিহার ট্রফি ও সিকে নাইডু ট্রফি প্রতিযোগিতায় আসাম দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। প্রসঙ্গতঃ, প্রয়াত সুবীর দত্তরায় বর্তমান শিলচর জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্যতম সহ-সভাপতি সুজয় দত্ত রায়ের অনুজ। 


গত ২৮শে মে,শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় শিলচর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৬৫ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সুবীরবাবু। মৃত্যুকালে রেখে গেছেন স্ত্রী, দুই পুত্র সহ আত্মীয় স্বজন এবং অসংখ্য পরিচিত গুণমুগ্ধ। খবরে প্রকাশ, প্রথম অবস্থায় প্রয়াত সুবীর দত্তরায়ের কোভিড সন্দেহ করা হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে কোভিড পরীক্ষার রেজাল্ট নেগেটিভ আসে গত ২৩ মে। পরে নার্ভের সমস্যার দরুন চিকিৎসার জন্য গুয়াহাটিতে রহমান হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু করোনার রেজাল্ট আরটিপিসিআরে আবার পজিটিভ হলে বৃহস্পতিবার তাঁকে শিলচরে ফিরিয়ে আনা হয়। শুক্রবার দুপুরে হার্টের সমস্যা দেখা দিলে সুবীরবাবুকে তড়িঘড়ি ভেন্টিলেশনে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। এদিন সন্ধ্যায় শিলচর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জীবন যুদ্ধে হার মানেন ময়দানের এই খেলোয়াড়।